৫ বছরে একই পরিবারের তিনজনের আত্মহত্যা

নাটোরের গুরুদাসপুরে ৫ বছরে একই পরিবারের তিনজন আত্মহত্যা করেছেন।

গত শুক্রবার (২০শে মার্চ) রাতে ঐ পরিবারের এক তরুণী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এ নিয়ে গত ৫ বছরে একই পরিবারের তিনজন আত্মহত্যা করলো। সবগুলো আত্মহত্যার পিছুনেই রয়েছে পারিবারিক অশান্তি ও কলহ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গুরুদাসপুর পৌরসভা এলাকার নারীবাড়ি মহল্লার ছিটকাপড় ব্যবসায়ী সুকচান আলীর মেয়ে শান্তনা শুক্রবার গভীর রাতে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে। দুই বছর আগে চাটমোহরের মিন্টু বিশ্বাসের সাথে মোবাইলে প্রেম ও পরে বিয়ে হয় শান্তনার। কিন্তু শান্তনা জানতো না মিন্টুর ঘরে আগের বউ সন্তান আছে। এনিয়ে শান্তনার সাথে স্বামী মিন্টু বিশ্বাসের পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। এক পর্যায়ে শান্তনা বাবার বাড়িতেই বসবাস শুরু করেন। এ নিয়ে অশান্তির এক পর্যায়ে শুক্রবার গভীররাতে শান্তনা আত্মহত্যা করে।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর মজিবর রহমান জানান, পাঁচ বছর আগে শান্তনার বড় বোন শাপলা (১৫) আত্মহত্যা করে। এর দুই বছর পরে শান্তনার বড় ভাই পলাশ (২৪) গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে। এভাবেই একই পরিবারের পরপর তিন ভাই বোনের অকাল মৃত্যুতে এলাকায় আলোচনা সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাহারুল ইসলাম বলেন, শনিবার (২১শে মার্চ) দুপুরে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নাটোর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।