হালুয়াঘাটে উত্তরখয়রাকুড়ি অগ্রযাত্রা কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিঃ নির্বাচনে ভোট কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ

এম,এ মালেক, হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে উত্তরখয়রাকুড়ি অগ্রযাত্রা কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিঃ এর ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে ভোট কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগে শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাত ৮.০০ ঘটিকার সময় পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকরা ও প্রতিষ্ঠানটির সদস্যগণ নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখান করে ভাংচুর ও বিক্ষোভ মিছিল করে। প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে প্রায় তিন ঘন্টা অত্র প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে।
পরে হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসানের হস্তক্ষেপে পুলিশ পাহারায় ঘটনাস্থল থেকে নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ কামরুল হুদা সমিতির কার্যালয় ত্যাগ করেন। এ সময় পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ফরিদ আহম্মেদ সেক্রেটারী প্রার্থী তারেক রহমান ও ট্রেজারার প্রার্থী মোঃ শাহজালাল বাবুসহ অন্যান্য পরাজিত প্রার্থীরা অন্ধকারে ভোট গণণা করে অর্থের বিনিময়ে ফলাফল ঘোষনা করার প্রেক্ষিতে পুনরায় ভোট গণণার আহবান জানান নির্বাচন কমিশনারকে। পাশাপাশি ভোট কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগে উক্ত ফলাফল প্রত্যাখান করেন।
এ বিষয়ে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ফরিদ আহম্মেদ, সেক্রেটারী প্রার্থী তারেক রহমান ও ট্রেজারার প্রার্থী মোঃ শাহজালাল বাবু সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, দুর্নীতি, ভোট কারচুপি, অন্ধকারে ভোট গণণা করে অর্থের বিনিময়ে ফলাফল ঘোষনা করেছেন নির্বাচন কমিশন। ভোট পুনগণণার কথা বলে লিখিত আবেদন নেওয়ার পর থানা পুলিশের সহযোগিতায় সীলগালা না করেই ব্যালট বাক্স নিয়ে পুলিশ পাহাড়ায় ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন নির্বাচন কর্মকর্তা। উক্ত নির্বাচন বাঞ্চাল করে নতুন করে নির্বাচনের দাবী জানায়।
এ বিষয়ে হালুয়াঘাট উত্তরখয়রাকুড়ি অগ্রযাত্রা কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিঃ এর প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা কামরুল হুদা সাংবাদিকদের সাথে কোন কথা বলতে রাজী হননি। সাংবাদিকদের উপস্থিতি দেখতে পেয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। ভোট কারচুপি,অনিয়ম ও অর্থের বিনিময়ে ফলাফল ঘোষনার বিষয়ে কোন সদোত্তর দিতে পারেনি।
এ বিষয়ে হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান বলেন, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্খায় ঘটনাস্থল পরির্দশন করে নির্বাচন কর্মকতাকে সমিতির ভবন থেকে নিয়ে আসেন। ব্যালট বাক্স সীলগালা করা কিনা বা কোথায় আছে সেটি নির্বাচন কমিশনের বিষয় এই বিষয়ে তিনি কিছু বলতে পারবেন না বলে জানান। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম বলেন, ব্যালট বাক্স উপজেলা নির্বাচন অফিসে সীলগালা অবস্থায় রয়েছে। ভোট পুনগগণার বিষয়ে যদি পরাজিত প্রার্থীরা আবেদন করেন তাহলে নির্বাচনের বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।