বারহাট্টা উপজেলায় এক অভূতপূর্ব স্বাধীনতা দিবস পালিত

মামুন কৌশিক বারহাট্টা থেকে: ১৯৭১ সালের পর এমন অভূতপূর্ব স্বাধীনতা দিবস আর আসেনি। করোনাভাইরাসজনিত কারণে ২০২০ সালের স্বাধীনতা দিবস এলো ভীষণ অন্য রকম প্রেক্ষাপট সঙ্গে নিয়ে১৯৭১ সালের পর ৫০ বছর স্পর্শ করার প্রাক্কালে ২০২০ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসটি অন্য রকম অক্ষরে লেখা থাকবে ইতিহাসের পাতায়।

বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারির কারণে মৃত্যু ও আক্রান্তের আতঙ্ক বয়ে এসেছে মহত্তম দিনটি।সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও মানুষকে সতর্ক করা হয়েছে সমবেত না হতে। কঠোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সঙ্গরোধ করতে। নিজের এবং সামাজিক মানুষের জীবন রক্ষার্থেই দেওয়া হয়েছে এই নির্দেশনা।

অথচ চিরাচরিত ঐতিহ্যের অংশ হিসেবেই বারহাট্টা উপজেলায় স্বাধীনতা দিবস বেশ বর্ণাঢ্যভাবে উদযাপন করা হয়। উপজেলা স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে উদযাপন শুরু হয়। ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে দিবসের শুভ সূচনা করা হয়।

সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে বারহাট্টা উপজেলার সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত এবং ব্যক্তিমালিকানাধীন ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত শহরের প্রধান প্রধান সড়কে জাতীয় পতাকা ও বিভিন্ন রঙের পতাকা দিয়ে সজ্জিত করা হয়।

শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীদের সমাবেশ, কুচকাওয়াজ, ডিসপ্লে ও শরীরচর্চা প্রদর্শন করা হয়।কিন্তুু এবার করোনা পরিস্থিতি সব হিসাব পাল্টে দিয়েছে।

বারহাট্টা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মোর্শেদ ও উপজেলা চেয়ারম্যান মাইনুল হক কাশেম শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য স্তৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বারহাট্টা উপজেলার সাবেক কমান্ডার শাহ আব্দুল কাদের, বীর মুক্তিযোদ্ধা নূর উদ্দিন নুর সহ অন্যানরা।