বন্ধ হবে মোবাইল ফোন চুরি-ছিনতাই

অবৈধ ও চোরাই পথে মোবাইল ফোন আমদানি বন্ধ করে বৈধ আমদানিকারক ও দেশীয় উদ্যোক্তাদের সুবিধার্থে ‘এনওসি অটোমেশন অ্যান্ড আইএমইআই ডাটাবেজ’  (নেইড) চালু করা হয়েছে।এমনকি, যে হ্যান্ডসেটটি আপনি কিনতে যাচ্ছেন সেটি আসল কিংবা বৈধ পথে আমদানি অথবা দেশে সংযোজন হয়েছে কিনা-তা জানা যাবে এ প্রযুক্তির মাধ্যমে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (BTRC) তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ মোবাইল ফোন ইমপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (BMPIA) আর্থিক সহায়তায় এই সিস্টেমটি চালু করা হয়েছে। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) বিটিআরসি ভবনে এ সেবার উদ্বোধন করেন।বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) অনুমোদিত পদ্ধতিতে আমদানির বিষয়টি যাচাই করার এ প্রযুক্তি বসছে মার্চে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, এই ডাটাবেজ উদ্বোধন তথ্যপ্রযুক্তির ইতিহাসে একটি মাইলফলক মুহূর্ত। অবৈধ সেট আমদানি প্রযুক্তি ছাড়া অন্য কোনোভাবে ধরা সম্ভব না। সেটি এখন থেকে সম্ভব হবে।

তিনি আরও বলেন, আমরা ডিজিটাল যত হচ্ছি ডিজিটাল অপরাধ প্রবণতা তত বাড়ছে। অপরাধের চরিত্র ডিজিটাল এবং এটি মোকাবেলার জন্য ডিজিটাল পদ্ধতি দরকার।

ইতিমধ্যে বিটিআরসি আইএমইআই ডেটাবেজ স্থাপন করেছে। এনইআইআর স্থাপনের কাজ শেষ হলে তখন অবৈধ পথে আমদানি করা বা আমদানি করা নকল সেট ধরা সহজ হবে।

গত বছর জুন মাসে এক ঘোষণায় বিটিআরসি জানিয়েছিল, এনইআইআরের মাধ্যমে যাচাই করা হলে বিটিআরসিও তাদের উদ্যোগে অবৈধ হ্যান্ডসেট বন্ধের ব্যবস্থা করবে।ওই ঘোষণায় জানানো হয়েছিল, ভুয়া বা কপি করা নকল আইএমইআই কোনো হ্যান্ডসেটে পাওয়া যায় সেগুলো বন্ধও হয়ে যাবে।

টেলিযোগাযোগ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস, বিটিআরসির কমিশনার আমিনুল হাসান উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।