ঠাকুরগাঁওয়ে এক স্ত্রীকে অসামাজিক কাজে লিপ্ত করাতে না পেরে মাথা ন্যাড়া করে দিল স্বামী

ঠাকুরগাঁও: স্ত্রীকে অসামাজিক কাজে বাধ্য করে লিপ্ত করাতে না পেরে ঠাকুরগাঁওয়ে এক নারীকে নির্যাতনের পর ন্যাড়া করে দিয়েছে পাসন্ড স্বামী আমিরুল ইসলাম। মাথা ন্যাড়ার ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পরলে মুখ লজ্জায় ওই নারী এখন ঘড় ছেড়ে অহসায় হয়ে আশ্রয় নিয়েছে অন্যের বাসায়।

স্থাণীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশ বলছেন সামাজিক অবস্থানে ফিরিয়ে আনতে ভুক্তভুগি নারীর পাশে থাকার পাশাপাশি অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বড়বাড়ি ইউনিয়নের মিস্ত্রিপাড়া গ্রামের রোজিনা বেগমকে অসামাজিক কাজে লিপ্ত করার চেষ্টায় দীর্ঘ দিন ধরে শারিরিক নির্যাতন চালিয়ে আসছিল স্বামী আমিরুল ইসলাম।

নির্যাতন করেও অন্যের সাথে রাত কাটাতে বাধ্য করতে না পারায়, গেল শনিবার বিকেলে স্ত্রী রোজিনা বেগমকে ঘড়ের খুটির সাথে বেঁধে মাথার চুল কেটে ন্যাড়া করে দেয়। এ ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পরলে মুখ লজ্জায় ভুক্তভুগি নারী সন্তানদের নিয়ে আশ্রয় নেয় পাশে ফুলতলা গ্রামের ওই নারীর ভাগিনা মিজানুরের বাসায়।

এ ঘটনার পর পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধারা ওই নারীর পাশে থেকে সহায়তা ও আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানালেও প্রতিবেশী ও স্বজনরা আমিরুলের দৃষ্টামুলক শাস্তির দাবি জানান।

স্থানীয় এলাকাবাসি জানান, গৃহবধু রোজিনাকে তার স্বামী প্রতিনিয়িত নির্যাতন করতো। যে দিন তার মাথা ন্যাড়া করে সেদিন তার স্বামী বাইরের গেটে তালা দেয়ায় কেউ তার বাড়িতে ঢুকতে পারে নি। সমাজে এ ধরনের নোংড়া কাজ করা ঠিক হয়নি। আমরা তার শাস্তির দাবি জানাই।

ভুক্তভুগি নারী রোজিনা বেগম জানান, দীর্ঘ দিন ধরে আমার স্বামী কারনে অকারনে আমাকে নির্যাতন করে। কিছুদিন আগে আমাকে অন্যের সাথে রাত টাকাতে বলে টাকার বিনিময়ে। আমি তার কথায় রাজি হয়নি বলেই আমাকে অলঙ্গ করে মারপিটের পর হাত পা বেধে মাথার ছুল কেটে ন্যাড়া করে দেয়।

আমার তিন সন্তান তাদের সামনে এসব করায় আমি লজ্জায় নিজেকে শেষ করে দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু বাচ্চাদের দিক তাকিয়ে তা করতে পারিনি। আমি আমার স্বামীর ভাত খাবো না। আমাকে সে রেহাই দেউক। আমি তার শাস্তি চাই।

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আসলাম জুয়েল জুয়েল জানান, সমাজে একজন নারীকে ন্যাড়া করার ঘটনা লজ্জাজনক বিষয়। ওই নারীর পাশে আমরা রয়েছি।

এ বিষয়ে বালিয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুল হক প্রধান জানান, ভুক্তভুগি মহিলাকে নির্যাতন করা হতো। তার নামে নিয়মিত মামলা রজু করা হয়েছে। অভিযুক্ত আমিরুলকে এ ঘটনার পর আজ মঙ্গলবার বিকেলে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ডাঙ্গীবাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।