চিনিকল বন্ধ নয়, আধুনিকায়ন হবে: শিল্পমন্ত্রী

ক্রমাগত লোকসানে থাকা চিনিকলগুলো বন্ধ নয় বরং আধুনিকায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় ধনিপাড়া এলাকায় সারের বাফার গুদামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, ‘কৃষক শ্রমিক ও মেহনতি মানুষের কথা চিন্তা করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন যারা চিনিকলের সাথে যুক্ত রয়েছে তাদের জীবনমান আরও কিভাবে উন্নয়ন করা যায় এবং তাদের আয় কিভাবে বাড়ানো যায়। চিনিকলের বিশাল সম্পদ কিভাবে কাজে লাগাতে পারি সেজন্য আমরা দেশি-বিদেশি উদ্যোক্তাদের সাথে যোগাযোগ করছি। এসব এলাকায় গ্যাস সরবরাহ না থাকায় কৃষিভিত্তিক শিল্প প্রতিষ্ঠান করার জন্য অনেক প্রস্তাব পেয়েছি। সেসব যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় চিনিকলগুলোকে আধুনিকায়নের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আপনারা কেউ বিভ্রান্ত হবেন না। চিনিকলের কেউ চাকুরি হারাবে না। আমরা নতুন আরও শিল্প কারখানা স্থাপন করবো যেখানে আরও কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে।’

এ সময় মন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান সরকারের সময়ে কখনো সারের সঙ্কট হয়নি। সারের জন্য মানুষকে প্রাণ দিতে হয়নি। সারের যেন সঙ্কট না হয় সেজন্য ১৩টি বাফার গোডাউন নির্মাণ প্রকল্প চলমান রয়েছে। তার মধ্যে একটির আজ উদ্বোধন হতে হলো। প্রতিটির গোডাউনের ধারণ ক্ষমতা ১০ হাজার মেট্রিক টন। এছাড়া প্রত্যেক জেলায় বাফার গোডাউন নির্মাণ করা হবে বলেও ঘোষণা দেন মন্ত্রী। এমনকি পঞ্চগড়ে সম্ভাবনাময়ী শিল্পখাতগুলোর আলোকে শিল্পায়নের আশ্বাস দেন মন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, এ এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে আগামী ১৫ অক্টোবর প্রথমবারের মতো পঞ্চগড় থেকে রাজশাহী রেলযোগাযোগ শুরু হবে। এ সময় অন্যদের মধ্যে পঞ্চগড়-১ আসনের সংসদ সদস্য মজাহারুল হক প্রধান, বিসিআইসির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত বক্তব্য রাখেন।

এর আগে, ফলক উন্মোচন করে শিল্পমন্ত্রী ও রেলপথ মন্ত্রী সারের বাফার গোডাউনের উদ্বোধন করেন। প্রায় ২৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে পঞ্চগড়ে সারের বাফার গোডাউন নির্মাণের কাজ করে সেনা কল্যাণ সংস্থা।