‘করোনা পরিস্থিতিতে সাধারণ ছুটি বাড়াতে হবে’

করোনা ভাইরাসের ব্যাপক সংক্রমণ রোধে চলমান ছুটি সীমিত আকারে বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) গণভবনে ৬৪টি জেলার সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করার সময় তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ বছর বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে। বর্তমান অবস্থান সুযোগ নিয়ে কেউ যেন আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটতে না পারে, সেদিকেও সজাগ দৃষ্টি রাখার নির্দেশ দেন তিনি।

দরিদ্র মানুষ যেন ঠিকমতো ত্রান সহায়তা পায়, তা নিশ্চিত করার তাগিদ দিয়ে সরকারপ্রধান জানান, এক্ষেত্রে কোন অনিয়ম হলে, কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। ভিডিও কনফরেন্সে বিভিন্ন জেলার মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তারা নিজ এলাকার সার্বিক চিত্র তুলে ধরেন।

এর আগে দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় গত ২৩ মার্চ মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ব্রিফিংয়ে জানান, ২৬ মার্চ থেকে সাপ্তাহিক ছুটিসহ ৪ এপ্রিল পর্যন্ত টানা ১০ দিনের ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে এই ছুটির মধ্যে জরুরি সেবা ছাড়া সব বন্ধ থাকবে।

ওইদিন মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ২৬ মার্চ সরকারি ছুটি, এর সঙ্গে ২৭-২৮ তারিখ সাপ্তাহিক ছুটি রয়েছে। আর ২৯ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হচ্ছে। ৩-৪ এপ্রিল আবার সাপ্তাহিক ছুটি রয়েছে। তবে ওষুধের দোকান ও কাঁচাবাজার সব খোলা থাকবে।