করোনার করনে স্থগিত ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ

করোনাভাইরাস আতঙ্ক এবার ক্রিকেটেও ভর করেছে। বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ দর্শকশুন্য মাঠে খেলার কথা আগেই জানা গিয়েছিল। এরপর আইপিএলও পিছিয়ে গেল। এবার তাতে নতুন সংযোজন ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে সিরিজ। এছাড়া ইংল্যান্ড দলের শ্রীলঙ্কা সফরও একই কারণে বাতিল করা হয়েছে।

ধর্মশালায় ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচের দিকে নজর ছিল ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার। কিন্তু করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে লখনউ আর কলকাতায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সিরিজের বাকি দুই ম্যাচ বাতিল করা হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) সিরিজের বাকি দুই ওয়ানডে দর্শকশুন্য স্টেডিয়ামে খেলার কথা জানিয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। কিন্তু করোনাভাইরাস নিয়ে ক্রমেই আতঙ্ক বাড়তে থাকায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সিরিজটাই থেমে গেল।

এর আগে শুক্রবার আইপিএলের এবারের আসর আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী পুরো ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৮১। একজনের মৃত্যুর খবরও জানা গেছে।

এদিকে করোনাভাইরাস আতঙ্কে শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল করেছে ইংল্যান্ড। ফলে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ মাঠে গড়ানোর আগেই দেশে ফিরে যাচ্ছেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা।

ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ শুরুর আগে দুই দলের খেলোয়াড়রা করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে করমর্দন করবেন না বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। এমনকি ভারতীয় খেলোয়াড়রা বল উজ্জ্বল করার জন্য থুথু ব্যবহার করবেন না বলেও জানিয়েছিলেন পেসার ভুবনেশ্বর কুমার।

এছাড়া সিরিজের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের নিরাপদ রাখার স্বার্থে কিছু গাইডলাইনও ঠিক করেছিল বিসিসিআই। যেমন, সাবান এবং পানি ব্যবহার করে কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে হাত ধোয়া, হাঁচি কিংবা কাশি দেওয়ার সময় মুখ ঢাকা। জ্বর, সর্দি, কাশি কিংবা যেকোনো অসুস্থতার জন্য দলের মেডিক্যাল টিমকে রিপোর্ট করা, হাত না ধুয়ে মুখ, নাক এবং চোখ স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকা, দলের বাইরের কিংবা অপরিচিত কারো সংস্পর্শ এড়িয়ে চলা।

অন্যদিকে করোনাভাইরাস আতঙ্কে ইউরোপ ও আমেরিকার প্রায় সব ক্রীড়া আসর স্থগিত রাখা হয়েছে।